এডি ভ্যান ভিলিট’র দু’টি কবিতা :: অনুবাদ: আলম খোরশেদ


489cb8ac826cfdce02f53f1035e30246_f22989

বেলজিয়ামের অন্যতম প্রধান কবি এডি ভ্যান ভিলিট’র (Eddy van Vliet) জন্ম ১৯৪২ সালে। পেশায় আইনজীবী হলেও ভ্যান ভিলিট মনে-প্রাণে একজন কবিই ছিলেন এবং তাঁর ষাট বছরের সংক্ষিপ্ত জীবনে কবিতা লিখেওছিলেন প্রচুর। সব মিলিয়ে তাঁর কাব্যগ্রন্থের সংখ্যা কুড়ির কাছাকাছি। শৈশবে আচমকা বাবার গৃহত্যাগ তাঁর সারাজীবনের কবিতায় প্রবলভাবে প্রভাব ফেলেছে। তাঁর কবিতায় তাই ঘুরে-ফিরেই স্মৃতি ও বিস্মৃতি, বিচ্ছেদ ও মৃত্যু, শোক ও সন্তাপ, স্বপ্ন ও স্বপ্নভঙ্গের হাহাকারধ্বনি শোনা যায় নানা আঙ্গিকে ও অবয়বে। একদিকে তিনি যেমন মার্কিন কবি রবার্ট লাওয়েলের ’স্বীকারোক্তিমূলক কবিতা’ দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিলেন, অন্যদিকে আচ্ছন্ন ছিলেন সুইডেনের নির্জনতাপ্রিয় কবি টমাস ট্রান্সট্রোমারের নম্রকণ্ঠ আত্মবীক্ষণ আর জীবনের গভীরতর সংবেদনায়। তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থের মধ্যে রয়েছে: The Great Sorrow, 1974; After the Laws of Parting and Autumn, 1978; Years after March, 1983; The courtyard, 1987; The future thief, 1991; Poetry: the Case for the Defence, 1991; Father, 2001 ইত্যাদি। এখানে অনূদিত কবিতাদুটি উৎকলিত হয়েছে John Van Tiel এর করা তাঁর কবিতার ইংরেজি অনুবাদ গ্রন্থ Farewell and Fall থেকে।

উঠোন

পা-জোড়া মুছে নিয়ে বাড়িতে আরাম করে বসো।

উঠোনে, যেখানে সহজেই কবুতরের
ডাক শুনতে পাওয়া খুব প্রত্যাশিত ছিল,
সেখানে গান শুনতে পেলাম আমি, যা,
চারপাশের ঘিনঘিনে বরফের থেকে
নিজেকে মুক্ত করে নিয়ে, বসন্তের আভাস দিল।

আমরা মুখ তুলে চাই। পাখিটি গলা উঁচিয়ে আছে।

আমাদেরই মতো, খাঁচাবন্দি এবং নিঃসঙ্গ,
ঋতুমৌসুম গুলিয়ে-ফেলা, সে-ও সময়ের একমুখীনতায়
বিশ্বাস করত না, যদিও তার গান আমাদের
বিদায়মুহূর্তটিকে কিছুটা হলেও দীর্ঘায়িত করেছিল।

শহর

আমার কাছ থেকে তোমার কেড়ে-নেওয়া জায়গাসমূহে
শহর পূর্ণ হয়ে আছে। আমাদের যৌথ পদক্ষেপ
আর যৌথ হাসিতে পূর্ণ।
স্বপ্নেরা আশ্রয় দিয়েছিল তাদের, এমনকি প্রয়োজনে
ভালোবাসাও বন্দুক ধরেছিল তাদের সুরক্ষায়।

আমার পায়েদের বলো কী করে এড়িয়ে যেতে হবে
একদা যা ছিল তাদেরই দখলে।

বলো তাদের। তারা বিশ্বাস করতে অস্বীকার করে, নাট্যশালা
পুড়ে গেছে, প্লেগের আক্রমণে বন্ধ হয়ে গেছে রেস্তোরাঁ,
উঠোনেরা বাতাসে মিলিয়ে গেছে, হোটেল বন্ধ,
আর খোলা চত্বরগুলোকে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

আমি মাথা নিচু করি আর ভাবি,
বৃষ্টি আমাকে ছোঁবে না, আর এভাবেই বুঝি ভুলে যাব
আমার কাছ থেকে যা-কিছু কেড়ে নেওয়া হয়েছিল, তাহাদের কথা।

———

alam

আলম খোরশেদ। কবি, প্রাবন্ধিক, অনুবাদক। জন্ম: ১৯৬০ সালে কুমিল্লায়। পেশায় প্রকৌশলী।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s